Browsed by
বিভাগ: ঘুরাঘুরি

নতুন আবিস্কার : দোলচিপাখুম ও গুল্লালিয়াখুমের গহীনে

নতুন আবিস্কার : দোলচিপাখুম ও গুল্লালিয়াখুমের গহীনে

দোলচিপাখুম ও গুল্লালিয়াখুমের গহীনে :
এই জায়গায় গিয়েছেন এমন কেউ গ্রুপে থাকলে অনুগ্রহ করে আওয়াজ দিন। আপনারা নি:সন্দেহে অনেক ভাগ্যবান। এখানে স্থানীয় বাসিন্দারাও তেমন একটা যায় না। টুরিস্ট প্লেস গুলো ঘুরতে ঘুরতে যারা বিরক্ত তারা এখানে ট্র্যাক করে দেখতে পারেন। প্রকৃতি এখানে এখনো অমলীন। কোন দূষন নাই। কোন চিপসের প্যাকেট নাই। কোন জুসের বোতল নাই! তাছাড়া ঝিরিতে প্রচুর মাছ আছে। কোনা কানায় অনেক সাপ আছে। অন্যান্য বন্য প্রাণীগুলো যার যার মতোন আছে। 

Read More Read More

ডেলং ট্যুর : মানিকগঞ্জ-টাঙ্গাইল ভ্রমণ

ডেলং ট্যুর : মানিকগঞ্জ-টাঙ্গাইল ভ্রমণ

১ দিনের ট্যুরে ঘুরে আসুন ৪টি ঐতিহাসিক স্থাপনা/ রাজবাড়ি (#মহেড়া জমিদার বাড়ি, #বালিয়াটি জমিদার বাড়ি, #পাকুটিয়াজমিদার বাড়ি ও #নাগরপুর জমিদার বাড়ি)। এছাড়া রয়েছে #ধলেশ্বরী নদিতে গোসল করার সুযোগ, আর শেষ বিকালে টাঙ্গাইলের ঐতিহস্যবাহী পোড়াবাড়ির #চমচম উপভোগ করার সুযোগ কে হাত ছাড়া করে? পুরো রুটের প্রাকৃতিক সৌন্দয্য বর্ণনা করার মতো ভাষা নাই। এক কথায় অসাধারণ। –
কিভাবে যাবেন:
১। যারা বাজেট ট্যুর দিতে চান তাদের জন্য: ঢাকার গাবতলী থেকে পাটুরিয়া – আরিচা বা মানিকগঞ্জের উদ্দেশ্যে ছেড়ে যাওয়া বাসে চড়ে মানিকগঞ্জের ৮ কিমি আগেই সাটুরিয়া বাসস্টপে নেমে যাবেন। ভাড়া লাগবে ৩৫-৪০ টাকা। সাটুরিয়া বাসস্টপে থেকে ১২ কিমি দূরে এই বালিয়াটি জমিদার বাড়ির অবস্থান। সাটুরিয়া থেকে পাকুটিয়াগামী রাস্তায় সাটুরিয়ার জিরো পয়েন্টে নামতে হবে। এখান থেকে মাত্র ১ কি.মি এর কম দূরত্ব বালিয়াটি জমিদার বাড়ির। বালিয়াটি জমিদার বাড়ির পর পাকুটিয়া জমিদার বাড়ি যেতে হবে লোকাল সিএনজি / বাস করে। একই ভাবে নাগরপুর জমিদার বাড়ি। তারপর টাঙ্গাইল শহরে এসে গোপালের চমচম খাবেন। টাঙ্গাইল থেকে ঢাকাগামি বাসে অথবা লোকাল যানবাহন করে নটিয়াপাড়া বাসষ্ট্যান্ডে নামবেন। বাসষ্ট্যান্ডেই মহেড়া জমিদার বাড়ি ( পুলিশ ট্রেনিং সেন্টার) যাবার লোকাল সিএনজি পাবেন। ভাড়া ৭৫ টাকা। শেয়ারে গেলে প্রতিজন ১৫ টাকা।
২। যারা আরামে যেতে চান তাদের জন্য: মাইক্রোবাস/ প্রাইভেট কার নিয়ে উপরের রুট ধরে চলে যাবেন।
৩। যারা প্রকৃতি দেখতে দেখতে হাওয়ায় চুল মন উড়িয়ে যেতে চান তাদের জন্য:
আপনারা মোটরসাইকেল করে দল বেঁধে উপরের রুট ধরে চলে যাবেন।
টিকেট সংক্রান্ত তথ্য:
বালিয়াটি জমিদার বাড়ির প্রবেশ টিকেটের মূল্য ২০ টাকা। মহেড়া জমিদার বাড়ির প্রবেশ টিকেটের মূল্য ৮০ টাকা। অন্যান্য জমিদারবাড়ি গুলোর কোন প্রবেশ মূল্য নাই।
*** বালিয়াটি রবিবার বন্ধ। সোমবার আধা বেলা বন্ধ।
খাবার দাবার:
সকালের নাস্তা খেতে পারেন সাটুরিয়াতে। দুপুরের খাবার নাগরপুর বাজার অথবা টাঙ্গাইলে। পোড়াবাড়ির চমচম টাঙ্গাইল শহরে গোপালে খেতে পারেন। অন্যান্য জায়গায় ভালো নাও পেতে পারেন। বিকালে হালকা খাবার মহেড়া জমিদার বাড়িতে সেরে নিতে পারেন।
#রিসোর্স:
ইউটিউব : https://youtu.be/MOF0eUlQd5A